২২ জুলাই ২০১২, সোমবার, ০৮:১৬:৫৪ অপরাহ্ন


দিল্লী বেইজিং নতুন টানাপোড়েন
চীন তাদের নতুন মানচিত্রে অরুণাচল প্রদেশকে অন্তর্ভূক্ত করে দেখাচ্ছে
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ৩০-০৮-২০২৩
চীন তাদের নতুন মানচিত্রে অরুণাচল প্রদেশকে অন্তর্ভূক্ত করে দেখাচ্ছে


ভারত ও চীনের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিল। গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের সরকার তাদের দেশের নতুন মানচিত্রে এই প্রথমবারের মত ভারতের সমগ্র অরুণাচল প্রদেশ রাজ্যটিকে অন্তর্ভূক্ত করে দেখিয়েছে। 

শুধু অরুণাচলই নয়, ‘আকসাই চিন’ নামে লাদাখ-সংলগ্ন যে ভূখন্ডটিকে ভারত নিজেদের বলে দাবি করে থাকে, সেটিও চীনের এই নতুন ম্যাপে জায়গা করে নিয়েছে। খবর বিবিসি বাংলার। 

চীনের এ এই মানচিত্র প্রকাশের কয়েক ঘন্টার ভেতরেই দিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর মন্তব্য করেছেন, “কেউ একটা আজগুবি দাবি করলেই অন্যের ভূখন্ড তার হয়ে যায় না!” ভারতীয় টিভি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এটিকে চীনের ‘পুরনো একটা বদভ্যাস’ বলেও বর্ণনা করেছেন তিনি।


ব্রিকসে দুই নেতার সাক্ষাত, কিন্তু পরক্ষনেই মানচিত্র বিরোধ/ফাইল ছবি 


চীনের এই মানচিত্র প্রকাশ করা হল এমন একটি সময়ে, যার দিনচারেক আগেই জোহানেসবার্গে ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনের অবকাশে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মধ্যে অনানুষ্ঠানিক কথাবার্তা হয়েছে। এমনকী, আগামী সপ্তাহে জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর আমন্ত্রণে চীনা প্রেসিডেন্টের দিল্লিতে আসারও কথা রয়েছে।

ফলে দুদেশের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের মধ্যে যোগাযোগ অব্যাহত থাকলেও সীমান্তে বা কূটনৈতিক পর্যায়ে যে উত্তেজনা রয়েই গেছে, চীনের নতুন এই ম্যাপকে পর্যবেক্ষকরা তারই সবশেষ দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখছেন।

এর আগে ভারত একাধিকবার বলেছে অরুণাচল কখনোই একটি বিতর্কিত ভূখন্ড নয় বরং তা ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। ভারতের বিভিন্ন বিরোধী দল অবশ্য এর মধ্যেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে, চীন যেখানে একটার পর একটা উসকানিমূলক পদক্ষেপ নিচ্ছে তখন চীনের প্রেসিডেন্টকে দিল্লিতে ‘আপ্যায়ন’ করাটা কতটা যুক্তিযুক্ত হচ্ছে। 

এ ব্যাপারে ভারতে রাজনৈতিক দলগুলোও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সমালোচনাও করছেন। 


শেয়ার করুন