২২ জুলাই ২০১২, সোমবার, ০৭:৩৬:১৫ অপরাহ্ন


যুক্তরাষ্ট্রে দাবদাহের কবলে ১৩ কোটির বেশি মানুষ
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ১০-০৭-২০২৪
যুক্তরাষ্ট্রে দাবদাহের কবলে ১৩ কোটির বেশি মানুষ তীব্র দাবদাহে কুলিং ফ্যানে শীতল হতে চেষ্টা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তাকর্মীরা


যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূল থেকে শুরু করে পশ্চিম উপকূলের ১৩ কোটির বেশি মানুষ বিভিন্ন মাত্রার দাবদাহের মুখোমুখি হয়েছেন। চলমান দাবদাহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আগের তাপমাত্রার রেকর্ড ভাঙতে শুরু করেছে। তাপমাত্রা বাড়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলের কোনো কোনো অঙ্গরাজ্যে ইতিমধ্যে দাবানল দেখা দিয়েছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দাবদাহ দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে আগামী সপ্তাহজুড়ে চলবে। 

গত ৬ জুলাই শনিবার দেশটির জাতীয় আবহাওয়া বিভাগের (এনডব্লিউএস) কর্মকর্তা জ্যাকব অ্যাশারম্যান জানান, অত্যধিক তাপ ও আর্দ্রতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত উত্তর-পশ্চিম, মধ্য-আটলান্টিক ও উত্তর-পূর্ব অঞ্চলের কোনো কোনো অংশের তাপমাত্রা বেড়ে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছতে পারে। দেশটির যেসব অঞ্চলে দাবদাহ বইতে শুরু করেছে, সেসব অঞ্চলে রাতে বাসিন্দাদের ভোগান্তি বাড়বে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। ক্যালিফোর্নিয়ার ডেড ভ্যালিতে ৮ জুলাই সোমবার তাপমাত্রা ৫৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছতে পারে বলেও পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। 

দেশটিতে বিভিন্ন মাত্রায় দাবদাহের মুখে থাকা ১৩ কোটির মধ্যে প্রায় ৫ কোটি ৭০ লাখ মানুষের জন্য হিট অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। অতিরিক্ত গরমের কারণে অ্যারিজোনায় অন্তত একটি শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

আবহাওয়াবিদ জ্যাকব জানান, যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলের মধ্যে অরিগন অঙ্গরাজ্যে তাপমাত্রা আগের রেকর্ড ভাঙতে পারে। অঙ্গরাজ্যটির ইউজিন, পোর্টল্যান্ড ও সালেমসহ বিভিন্ন শহরে হতে পারে নতুন রেকর্ড। চলমান দাবদাহে দেশটির আরো কয়েক ডজন জায়গায় তাপমাত্রার নতুন রেকর্ড হতে পারে। এর ফলে অ্যারিজোনার বুলহেড সিটি থেকে ভার্জিনিয়ার নরফোক পর্যন্ত লাখ লাখ মানুষকে গরম থেকে বাঁচতে কুলিং সেন্টারে আশ্রয় নিতে হতে পারে।

এ পরিস্থিতিতে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ বাল্টিমোরের বাসিন্দাদের জন্য কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, পর্যাপ্ত তরল পান করুন। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে অবস্থান করুন। সূর্যের তাপ থেকে দূরে থাকুন। আত্মীয় ও প্রতিবেশীর খোঁজখবর নিন। এদিকে নিউইয়র্কেও প্রচ- দাবদাহ চলছে। কনএডিসনের গ্রাহকদের বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে ই-মেইল করা হচ্ছে। এ গরমের কী কী পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন, তা তারা জানিয়ে দিয়েছেন। এর মধ্যেও প্রচণ্ড গরমে অনেকের বাসায় বিদ্যুৎ চলে যাচ্ছে। প্রচণ্ড গরমে অনেকেই সমুদ্রসৈকতে চলে যাচ্ছেন একটু প্রশান্তির আশায়।

শেয়ার করুন