২৫ মে ২০১২, শনিবার, ০৯:২১:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী অপরাধী যত প্রভাবশালীই হোক শাস্তি তাকে পেতেই হবে- ওবায়দুল কাদের মানুষের ক্ষতি যারা করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত থাকবে- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাবেক আইজিপি বেনজির আহমেদের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ মেয়াদোত্তীর্ণ নৌযান ও নদী দখল-দূষণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ুন - পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের শান্তিরক্ষা মিশন থেকে বাদ দেয়া হবে- ডোজারিক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের সমাবেশ হেলিকপ্টার দূর্ঘটনায় ইরানের প্রেসিডেন্ট সহ অন্যান্যদের মৃত্যুতে বিএনপির শোক ভারতে ঘুরতে যেয়ে বাংলাদেশের সংসদ সদস্য খুন তামাকমুক্ত লক্ষ্য অর্জনে শক্তিশালী তামাককরের বিকল্প নেই


তারুণের রোড মার্চ’ এর উদ্বোধনকালে ঘোষণা
এই সরকারের পতন ছাড়া আমরা আর ঘরে ফিরে যাবো না- মির্জা ফখরুল
নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৬-০৯-২০২৩
এই সরকারের পতন ছাড়া আমরা আর ঘরে ফিরে যাবো না- মির্জা ফখরুল


সরকার পতন না হওয়া পর্যন্ত রোড মার্চ হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার রংপুর জেলা কার্যালয়ের সামনে জাতীয়তাবাদী যুব দল-স্বেচ্ছাসেবক দল-ছাত্র দলের উদ্যোগে দিনাজপুর অভিমুখে ‘তারুণের রোড মার্চ’ এর উদ্বোধনকালে এই ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ‘‘ আজকে এই রোড মার্চ শুরু হলো এই রোড মার্চ শেষ হবে যেদিন আমরা এই সরকারের পতন ঘটাতে পারব।”

‘‘ আমরা পরিস্কার করে বলতে চাই, আমাদের এই এক দফা সময় থাকতে মেনে নেন। যদি এক দফা মেনে নেন শান্তিপূর্ণভাবে অথবা আপনারা(সরকার) যদি পদত্যাগ না করেন তাহলে জনগন তৈরি হয়ে গেছে, জনগনের প্রত্যেকটা সময় দেখবেন লক্ষ লক্ষ মানুষ সেখানে জমায়েত হচ্ছে। এই লক্ষ লক্ষ মানুষের যে উত্তাল তরঙ্গ সৃষ্টি হবে সেই তরঙ্গে আপনার সরকার ভেসে যাবে, জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘‘ আজকে আমরা এখানে শপথ নেই যে, এই সরকারের পতন ছাড়া আমরা আর ঘরে ফিরে যাবো না। আমরা জনগনকে নিয়ে এগিয়ে যাবো।”

তিনি বলেন, ‘‘ আমাদের দাবি পরিস্কার আপনারা এখনই পদত্যাগ করেন। আপনাকে(শেখ হাসিনা) এদেশের মানুষ দেখতে চায় না ক্ষমতায়। সংসদ ভেঙে দেন আর নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেন।”

‘‘ নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। আপনারা সরকারের অধীনে নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ভাবে নির্বাচন করতে পারবে না। সেই নির্বাচিত হতে হবে নতুন নির্বাচন করবে, জনগন অংশগ্রহন করবে এবং তারা যাকে ইচ্ছা তাকে ভোট দিয়ে পার্লামেন্ট তৈরি করবে, নতুন বাংলাদেশ তৈরি করবে।”

ফখরুল বলেন, ‘‘ আমাদের নেতা তারেক রহমান সাহেব এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে নির্বাচনে যেতে পারি সেই নির্বাচন যদি নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে হয় তাহলে আমরা নির্বাচনে পরে আন্দোলনে অংশগ্রহনকারী দলগুলো নিয়ে আমরা একটা জাতীয় সরকার গঠন করব। সেই সরকার কিভাবে চলবে তারা নির্ধারণ করবে।”

‘‘ ৩১ দফা কর্মসূচি দেয়া হয়েছে। যেখানে আমার যুবক ভাইদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যেখানে আমাদের জুডিশিয়াল সার্ভিসকে নতুন করে সাজানোর কথা বলা হয়েছে, যেখানে কৃষকদের উন্নয়নের কথা বলা হয়েছে, যেখানে নতুন একটা আত্ম কর্মসংস্থানের ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে।”

জেলা বিএনপির কার্যালয়ে প্রাঙ্গন থেকে সকাল ১১টা ২০ মিনিটে এই রোড মার্চের যাত্রা শুরু হয়। এই রোড মার্চে কয়েক‘শ মোটরবাইক, মাইক্রোবাস, মিনি বাসে করে কয়েক হাজার নেতা-কর্মীরা অংশ নিচ্ছে।

যুব দলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টনের সঞ্চালনায় রোড মার্চের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এসএম জিলানি, সাধারণ সম্পাদব রাজীব আহসান, ছাত্র দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদ ইকবাল খান ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।

বিকালে দিনাজপুরে গিয়ে এই রোড মার্চ শেষ হবে সমাবেশের মধ্য দিয়েছে। রোড মার্চের যাত্রা পথে আদমদিগী, সৈয়দপুর ও দশমাইলে পথসভা হবে বলে জানিয়েছে আয়োজনকরা।

তিন সংগঠনের এ্টি প্রথম রোড মার্চ।আগামীকাল বগুড়া থেকে রাজশাহী অভিমুখে তাদের রোড মার্চ রয়েছে।





শেয়ার করুন