০৪ মার্চ ২০১২, সোমবার, ১০:০০:৩৬ অপরাহ্ন


সিনেটে পাবলিক চার্জ বিল আবারো পাশ
কঠোর হচ্ছে ইমিগ্রেশন
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-০৫-২০২৩
কঠোর হচ্ছে ইমিগ্রেশন



গত ১৭ মে  বুধবার সিনেটে ট্রাম্প আমলের পাবলিক চার্জ বিল আবারো পাস হয়েছে। এর ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী বসবাসের জন্য স্বজনদের স্পন্সর করতে ফেডারেল গাইডলাইন অনুযায়ী আর্থিক স্বচ্ছলতার প্রমাণ যুক্তরাষ্ট্র হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টকে (ডিএইচএস) দিতে হবে। আরকানসাস স্টেটের সিনেটর রজার মার্শাল উত্থাপিত বিল এসজেরেস ১৮ গত ১৭ মে ৫০-৪৭ ভোটে সিনেটে পাস হয়। বিলটি এখন হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভে পাঠানো হবে। হাউস যদি বিলটি সর্বসম্মতিক্রমে পাস করে তাহলে প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষরের জন্য হোয়াইট হাউসে প্রেরণ করা হবে। তবে এটি হাউসে অবশ্যই পাশ হবে। কারণ হাউস রিপাবলিকানদের দখলে। এদিকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন ইতিমধ্যে বিলটির বিরোধিতা করে বলেছেন, তিনি এতে ভেটো পাওয়ার প্রয়োগ করবেন। প্রস্তাবিত বিলে ইমিগ্র্যান্টদের নিকট আত্মীয়দের যুক্তরাষ্ট্র ইমিগ্র্যান্ট হিসেবে ভিসা প্রাপ্তির সময় স্পন্সর করে পুরোপুরি ফাইনালসিয়াল স্বচ্ছলতার প্রমাণ দিতে হবে। আমেরিকায় ইমিগ্র্যান্ট হওয়ার পর পাঁচ বছর পর্যন্ত মেডিকেইড, ফুড স্টাম্পসহ কোন পাবলিক হাউজিং সুবিধা গ্রহণ করবে না মর্মে স্বাক্ষর করতে হবে। যে সকল আবেদনকারী সরকারের ভাতার উপর নির্ভরশীল তাদের বেনিফিশিয়ারীদের যুক্তরাষ্ট্রে ভিসাপ্রাপ্তি, প্রবেশাধিকার ও আইনগত গ্রিনকার্ড দেয়া নাকচ করা হবে।
য্ক্তুরাষ্ট্রে বৈধ ইমিগ্র্যান্ট ও তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি মানবিক আচরণ নিশ্চিত করাই হল আমেরিকার মূল্যবোধের প্রতি সংহতিপূর্ণ। সেই মূল্যবোধকে উপেক্ষা করে ট্রাম্প প্রশাসন মেডিকেইড, ফুড স্টাম্প ও অন্যান্য পুষ্টির সহায়তা লাভকেও যে পাবলিক চার্জের আওতায় এনেছিল। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৯ সালে ‘পাবলিক চার্জ’ হিসেবে একটি অধ্যাদেশের মাধ্যমে ইমিগ্র্যান্ট স্বার্থ বিরোধী আইন জারি করেন। এতে বৈধ ইমিগ্র্যান্টদের নিকট আত্মীয় স্বজনদের স্পন্সর করে যুক্তরাষ্ট্রে আনতে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। বেশিরভাগ আবেদনকারী পাবলিক চার্জের অ্যাক্টের অধীনে ভিসা প্রাপ্তি থেকে অযোগ্য বিবেচিত হন। প্রেসিডেন্ট বাইডেন ট্রাম্প প্রশাসনের মেডিকেইড ও পুষ্টির সহায়তা লাভকেও যে পাবলিক চার্জের আওতায় এনেছিল তাকে রহিত করেন। শুধু তাই নয় ট্রাম্প প্রশাসনের পূর্বে যে আইন যুগ যুগ ধরে বলবৎ ছিল তা পূন:প্রতিষ্ঠা করেন। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট (ডিএইচ এস) আমেরিকায় প্রবেশে অগ্রহণযোগ্যতা নিরূপনে পাবলিক রুল কিভাবে প্রয়োগ করবে যে সম্পর্কিত ফাইনাল রুল ফেডারেল রেজিস্টারে প্রকাশ করে। নতুন বিলটি আইনে পরিণত হলে ইমিগ্র্যান্টদের আত্মীয় স্বজনরা ইমিগ্র্যান্ট হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আগমনে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হবেন। বলটি বাইপাটিশন পাশ হয়। এই বিলে যদি দুই জন ডেমোক্র্যাট ভোট না দিতেন তাহলে বিলটি পাশ হতো না। দুই ডেমোক্র্যাট ভোট দিয়ে তারা প্রমাণ করেছেন তারা ইমিগ্র্যান্টদের পক্ষে নয়। তাদের অবস্থান প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং ইমিগ্র্যান্টদের বিরুদ্ধে।

শেয়ার করুন