১৪ জুন ২০১২, শুক্রবার, ০৬:৫৮:৪৩ অপরাহ্ন


ভারতে ম্যাক্সওয়েল ঝড়
নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৮-১১-২০২৩
ভারতে ম্যাক্সওয়েল ঝড় ডাবলের পর ম্যাক্সওয়েল এভাবেই ক্যামেরাবন্দি/ছবি সংগৃহীত


ভারতের কন্ডিশনটা ম্যাক্সওয়েলের বেশ ভালই জানা! আইপিএলে খেলার সুবাদে তার এমন ব্যাটিংয়ে অভ্যস্ত। তবুও একটা ওয়ানডে এবং সেটা বিশ্বকাপের আসরে। সবমিলিয়ে দলের বিপর্যয়ের মধ্যে থেকে দুর্দান্ত ব্যাটিংটাই করেছেন এ অস্ট্রেলিয়ান। ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরী বললেই তো হয়ে যায় না। ভারতের এ আসরে যে হারে রান উঠছে, তাতে একটা ডাবল সেঞ্চুরী কাম্যই ছিল। ম্যাক্সওয়েল সে পূর্ণতা নিয়ে এলেন। এ যেন ব্যাটিং নয়, রীতিমত রান ঝড়। দুর্দান্ত ও অসাধারন সব মার। এমনিতেই ব্যাটিংটা করেন তিনি মোহনীয় ভঙ্গিতে। কিছুটা রিকি পন্টিংয়ের আদলে। এরপরও ম্যাক্সওয়েল এর স্টাইল নিছক ম্যাক্সওয়েলেরই। আইপিএলই শুধু নয়, বিগ ব্যাশেও তিনি এই ব্যাটিংয়েই অভ্যস্ত। যা করে দেখালেন এ আসরে।

আফগানিস্তানের বোলারদের বেড়ধক পিটিয়ে ওই রান করে থাকলেন অপরাজিত ২০১ রান করে।  ১২৮ বলে ওই রান করেন তিনি ১০ ছক্কা ও ২১ টি চারের মার হাকিয়ে। মজার ব্যাপার হলো- তিনি ওই রান করতে ক্রিজে ছিলেন ১৮১ মিনিট। অর্থাৎ তার রান গড় প্রতি মিনিটে এক এর চেয়েও বেশী! যদিও ওয়ানডেতে মিনিটের হিসেবটা কাউন্ট হয়না তেমন, যা হয় টেস্টে।
এর আগে হাফ সেঞ্চুরী করেছিলেন তিনি ৫১ বলে। চার ছিল সাতটি। এরপরই অ্যাটাকে যান।


অর্থাৎ দ্বিতীয় ৫০ রান করেন ২৬ বলে। সব মিলিয়ে সেঞ্চুরী ৭৬ বলে। ততক্ষনে তার ইনিংসে যোগ হয় তিন ছক্কা ও ১০ চার। পরে ওই ধারা অব্যহত রেখে ১২৮ বলে ডাবল সেঞ্চুরী ও দলেরও কাংখিত লক্ষ্যে পৌছান। প্রথম ব্যাটিং করে আফগানদের করা ২৯১ টপকে জয় তুলে নেন (২৯৩/৫) এবং দলকে নিয়ে যান বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে। এটা ম্যাক্সওয়েলের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরী। এবং বিশ্বকাপে তৃতীয় ডাবল। এর আগে মার্টিন গাপটিল ওয়েস্টইন্ডিজের বিপক্ষে করেছিলেণ ২৩৭ (অপ.) রান, আর ক্রিস গেইল ২১৫ করেছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। ওই দুই সেঞ্চুরীই ছিল ২০১৫ বিশ্বাকাপে।
এছাড়া ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এটা ১৩ তম ডাবল। অস্ট্রেলিয়ান এ ব্যাটসম্যানের ছিল এটা ১৩৬ তম ওয়ানডে। আর সেঞ্চুরী চতুর্থ।

শেয়ার করুন