১৪ জুন ২০১২, শুক্রবার, ০৫:৫৭:১২ অপরাহ্ন


মামলা তুলে নেওয়া হবে : গঠন করা হয় নির্বাচন কমিশন
দীর্ঘ চার বছর পর কোম্পানীগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশনে ঐক্য
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৫-১১-২০২৩
দীর্ঘ চার বছর পর কোম্পানীগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশনে ঐক্য বক্তব্য রাখছেন মাওলানা আব্দুল আলীম জিহাদী


প্রবাসের অন্যতম আঞ্চলিক সংগঠন কোম্পানীগঞ্জ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন। এই আদর্শিক সংগঠনের কার্যকরি কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জটিলতার সৃষ্টি হয়। সেই জটিলতা নিয়ে বার বার বৈঠক করা হলেও এর কোন সুরাহ হয়নি। মূলত বিভক্ত হয়ে পড়ে কোম্পানীগঞ্জবাসীর প্রাণের সংগঠন। এক পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন জিহাদী এবং সবুজ। আরেক পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন আরজু-পিন্টু। বিভক্তির পরও শান্তি প্রতিষ্ঠা হয়নি। নেতৃত্বে লড়াই শুধু ভবন দখল, পাল্টা দখল এবং পুলিশ ডাকাডাকির মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল না। কোর্ট কাচারি পর্যন্ত গড়ায়। ২০১৯ সালের ৩০ থেকে অচলাবস্থা চূড়ান্ত রূপ নেয়। দীর্ঘ চার বছর অচলাবস্থার অবসান হয়েছে। কোম্পানীগজ্ঞ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন ইনক্ ইউএসএর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিবদমান পক্ষদ্বয় ঐক্যবদ্ধভাবে অ্যাসোসিয়েশনের উন্নয়ন ও নির্বাচন ২০২৪ বাস্তবায়ন করার সংকল্প ব্যক্ত করেন।

গত ১১ নভেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় ব্রুকলিনের চার্চ অ্যাভিনিউয়ে সমিতির ১ নম্বর ভবনে বর্তমান কার্যকরি কমিটির সভাপতি মাওলানা আব্দুল আলীম জিহাদীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সবুজ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক লতিফুর রহমান লিটনের পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে অর্থসহ কোরআন তেলাওয়াত করেন কমিটির সদস্য মোহতাছেম বিল্লাহ্ সিরাজী।

সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন লতিফুর রহমান লিটন, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন সবুজ, ট্রাস্টি বোর্ড চেয়ারম্যান আবু ছুফিয়ান, নোয়াখালী সমিতির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও কোম্পানীগঞ্জ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হাজি মফিজুর রহমান, সাবেক সভাপতি ভিপি বাবুল, ট্রাস্টি সদস্য সেলিম জাহিদ, কোষাধ্যক্ষ মুহাম্মদ কামরুল ইসলাম, আবুল কালাম (সাবেক ট্রাস্টি বোর্ড চেয়ারম্যান), সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার আবু নাছের চৌধুরী, নব নিযুক্ত প্রধান নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ মুসা বিএসসি, নবনিযুক্ত অডিট প্রধান মাস্টার শাহ আলম, মশিউর রহমান সবুজ।

 গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন কারণে এই জনপ্রিয় সংগঠনটি দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় এবং কয়েকটি মামলাও কোর্টে ঝুলতে থাকে। এই অবস্থায় সমিতির সদস্যদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। কোম্পানীগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মেট্রো হোমসের চেয়ারম্যান ও সমিতির আজীবন সদস্য ফখরুল ইসলাম প্রতি বছরই নিউইয়র্কে বেড়াতে আসেন এবং তখন তিনি সমিতির সদস্যদের অনুরোধে সমিতির দুই পক্ষের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে আগামী ২০২৪ সালে নির্বাচন, অডিট কমিটি গঠন এবং মামলা প্রত্যাহারের শর্তে একটি সমঝোতায় পৌঁছাতে সহযোগিতা করেন। যারা সমিতিকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তাদের মধ্য অন্যতম হলেন ফখরুল ইসলাম, ভিপি বাবুল, সেলিম জাহিদ, লতিফুর রহমান লিটন, কোষাধ্যক্ষ কামরুল ইসলাম, গ্রেটার নোয়াখালী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইউছুফ জসিম ও সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন সবুজ। অতিথিদের মধ্যে ছিলেন কোম্পানীগঞ্জ ফোরাম সভাপতি নূরুল করিম মোল্লা, নিউকার্ক ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলির সভাপতি আব্দুল মান্নান, মোহাম্মদ নাসিম, রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ী নূরুল হুদা হারুন, ব্যবসায়ী হেদায়েত উল্লাহ, সাহাব উদ্দিনসহ আরো অনেকে।

তিন সদস্যের অডিট কমিটিতে যেসব সম্মানিত ব্যক্তিরা আছেন তারা হলেন- মাস্টার শাহ আলম, মাস্টার নুর মোহাম্মদ, মুহাম্মদ মোস্তাফা স্বপন।

পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশনে সম্মানিত ব্যক্তিরা হলেন- মাস্টার মুহাম্মদ মুসা (প্রধান নির্বাচন কমিশনার), মাওলানা আবদুল শহীদ, মুহাম্মদ নঈম উদ্দীন, এ এস এম মাঈনুদদীন পিন্টু ও মোহাম্মদ এ কাদের জিলানী।

নির্বাচন-২০২৪ আয়োজনে ঐক্যবদ্ধভাবে সিদ্ধান্তসমূহ- ১. বর্তমান কমিটি নতুন নির্বাচিত কমিটির কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবে। ২. কার্যকরি কমিটি নতুন ভোটার তালিকা ২০২৪ চূড়ান্ত করবে। ৩. বর্তমান কার্যকরি কমিটি সব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে এবং নির্বাচনকালীন সময়ে অ্যাসোসিয়েশনের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করবে। ৪. অডিট কমিটির সহযোগিতায় সব অর্থ এক জায়গায় এনে কার্যকরি কমিটির সহযোগিতায় সমিতির সব বিল সদস্যদের বেনিফিট ও লোন পরিশোধ করা হবে। ৫. নতুন নির্বাচন কমিশন অডিট কমিটি গঠনের পর ল’ ইয়ারের পরামর্শ অনুযায়ী পক্ষদ্বয় ও কমিটির স্বাক্ষরে মামলা উঠানোর পদক্ষেপ নেয়া হবে। ৬. নির্বাচন কমিশন ২০১৯ সালে প্রকাশিত এবং কমিটি দ্বারা আদালতে জমাকৃত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচন-২০২৪ পরিচালনা করবেন। ৭. নির্বাচন চলাকালীন সময়ে ১০+৪ (সমন্বয়কারী) মোট ১৪ জন সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচন পর্যবেক্ষক মনোনীত করা হবে (নির্বাচনকালীন সময়ে ট্রাস্টি বোর্ডের কার্যক্রম স্থগিত থাকিবে)। ৮. নির্বাচন-২০২৪ ভোটার তালিকা করার লক্ষ্যে সদস্য পদ হালনাগাদ এবং নতুন সদস্য পদ গ্রহণ করার শেষ সুযোগ থাকবে ৩১ ডিসেম্বর ২০২৩। ৩০ মার্চ ২০২৪ তারিখের মধ্যে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। ৯. নির্বাচন কমিশন ৩১ মে ২০২৪ এর মধ্যে নির্বাচন কার্যক্রম সম্পন্ন করবেন (যে কোনো প্রয়োজনে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে পরামর্শ করবেন)।

পরিশেষে এক প্রশ্নের জবাবে সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন সবুজ সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, আসুন অ্যাসোসিয়েশনের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে যার যার অবস্থান থেকে অবদান রাখি এবং অতীতের সব ভেদাভেদ ভুলে আনন্দঘন পরিবেশে নির্বাচন ২০২৪ সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করি।

সভাপতি আব্দুল আলীম জিহাদীর সমাপনী বক্তব্য ও দোয়ার মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলন ও মতবিনিময় শেষ হয়।

শেয়ার করুন