১৪ জুলাই ২০১২, রবিবার, ১০:৪৬:৩৮ পূর্বাহ্ন


জিম্বাবুয়ের কাছেও বিধ্বস্ত
টি-২০ তে একি হাল
বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৩-০৮-২০২২
টি-২০ তে একি হাল মাঠের এক সাফল্যে খেলোয়াড়দের আনন্দ ভাগ করে নেয়া। কিন্তু টি-২০ স্কোয়াডের পরিচিত মুখগুলো অনুপুস্থিত। রেজাল্টেও কী তার প্রভাব?/ছবি সংগৃহীত


টি-২০ ফরম্যাটে মানিয়ে নিতেই পারছেনা বাংলাদেশ। এখনও কিভাবে ব্যাটিংটা করতে হয়। কিভাবে বোলিংয়ের হিসেব কষতে করতে হয়- এগুলো বুঝেই না বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। কবে এ ঘাটতি পূরণ হবে সেটা কেউ বলতে পারে না। কোথায় যে সমস্যা সে ফাইন্ডআউটই নেই। ফলে পারফরমেন্সের অবনতি দিনান্দর। যেটুকু অভিজ্ঞতা হয়েছিল সিনিয়র ক’জন ক্রিকেটারের। সেটাও বিসিবি’র উচ্চভিলাষী অভিলাষে জলাঞ্জলি দেয়া হয়ে গেছে।মাশরাফিকে ছেটে ফেলা হয়েছে আগেই। ওই পথে সাকিব,মুশফিক,মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, তামিমদের সঙ্গে এমন কিছু আচরণ করা হয়েছে যাতে তারা যেন নিজ থেকেই সরে দাঁড়ান। বাস্তবেও তাই। সাকিব,তামিম,মুশফিকরা এখন আর এ ফরম্যাটে খেলতে চাননা।

সেটা অনেকটাই অভিমান,অবহেলার কারণে। ফলে যাদের দিয়ে টি-২০ স্কোয়াড সাজানো হয়েছে, এদের নেই কোনো আন্তর্জাতিক পর্যায়ের তেমন অভিজ্ঞতা। দেশেও তারা তেমন কোনো উন্নতমানের উইকেটে খেলে নিজেদেরকে তৈরি করতে পারেন। চেনা দলটা এখন কেমন যেন অচেনা। ফলে এখন জিম্বাবুয়ের কাছেই লজ্জায় মাথা হেড করে আসতে হয়েছে। জিম্বাবুয়েতে অনুষ্ঠিত তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজে ১-২ ম্যাচে সিরিজ হেরে হেড ডাউন করে শেষ করেছে সিরিজ। স্বপ্ন পুরণ জিম্বাবুয়ের। কারণ ২০০৬ থেকে অধ্যাবদি কখনই পারেনি বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জিততে। বাংলাদেশের ক্রিকেটের অব্যাহত অধঃপতনের সুবাদে সে স্বপ্ন পূরণ জিম্বাবুয়ের। 

হারারেতে শেষ টি-২০ ম্যাচে সিরিজ জয় নিশ্চিত করেও জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটারদের উল্লাস করতে দেখা যায়নি। সিরিজটাতে তারা যে যোগ্যদল - সে ভাবখানা ধরে রেখেই ভাবগাম্ভীর্যরে সঙ্গে মাঠ ছেড়েছে। যা ছিল বেশ লক্ষণীয়।

বাংলাদেশ দল এ ফরম্যাটে হারের বৃত্তেই। এ জিম্বাবুয়ের সঙ্গে বাংলাদেশ তাদের প্রথম টি-২০ ম্যাচ খেলেছিল ২০০৬ সনে খুলনায়। সে ম্যাচে মাশরাফি-সাকিবদের দল অনায়াসেই জিতে নেয় ম্যাচ ও সিরিজ। সে থেকে এ সিরিজের আগ পর্যন্ত কখনই জিম্বাবুয়ে সিরিজ জিততে পারেনি। বাংলাদেশের ক্রিকেটের এতই অধঃপতন অনেকটাই দেনার দায়ে জর্জরিত,অর্থসঙ্কটে ভুগতে থাকা জিম্বাবুয়ে বোর্ডের ক্রিকেটারদের কাছে লজ্জাজনক পরাজয় বরণ করলো সিরিজে। এটা জিম্বাবুয়ের প্রথম টি-২০ সিরিজ জয় বাংলাদেশের বিপক্ষে। 

২০২১ সনে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত টি-২০ বিশ্বকাপ থেকেই বাংলাদেশ দলে পরীক্ষা- নীরিক্ষা ও অধঃপতন শুরু। ওই আসরে ওমান, পাপুয়া নিউগিনির সঙ্গে কোয়ালিফাইং ম্যাচে জয়ের পর মূল আসরের একটি ম্যাচেও জিতেনি। হারের লজ্জা নিয়ে আসর শেষ করে দেশে পাকিস্তানের বিপক্ষেও ৩-০ তে সিরিজ হারে। ব্যার্থতার ষোলকলা পূর্ণ হলো এ আসরে। 

বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে একটা কথা ভেসে বেড়ায় বাংলাদেশ দল এখন আফগানিস্তানকে এড়িয়ে চলে। তাদের সঙ্গে খেলতে চায়না। কারণ বাংলাদেশ আফগানিস্তানের সঙ্গে কোনো ফরম্যাটেই পেরে ওঠেনা। আর সিরিজ হারলে তার চেয়ে বড় লজ্জার আর কী আছে। এ ফরম্যাটেও সর্বশেষ ওই দলের সঙ্গে সিরিজ ১-১ শেষ করে মুখ রক্ষা করেছিল। 

তবে লক্ষ্যণীয় আগামী বছর (২০২৩ সনে) অস্ট্রেলিয়াতে টি-২০ বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ যেখানে জিম্বাবুয়ের সঙ্গেই যাচ্ছেতা ক্রিকেট খেলে তাহলে ওই বিশ্বকাপে কী হবে দলের অবস্থা? আগের আসলের ফটোকপিই তো হবে রেজাল্ট? এর চেয়ে আর ভাল কী প্রত্যাশা করবে বাংলাদেশের মানুষ। 

প্রথম দুই ম্যাচে ১-১ থাকার পর গত ২ আগস্ট মঙ্গলবারের ম্যাচটি ছিল ফাইনাল তুল্য। সোহানকে এ সিরিজে কী মনে করে অধিনায়ক করেছিল বিসিবি সেটা তারাই জানে। মাহমুদুল্লাহকে ছেটে ফেলে সোহানকে ক্যাপ্টেন বানানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে তিনিও ছিটকে যান ইনজুরিতে। এরপর শেষ ম্যাচে মাহমুদুল্লাহকে আবার ফেরানো হলেও অধিনায়কত্বের দ্বায়িত্ব দেয়া হয় জাতীয় দলে অনিমিয়তি মোসাদ্দেক হোসেনকে। যার অভিজ্ঞতা হিসেবে ধরা হয় ঘরোয়া ক্রিকেটে আবাহনীর অধিনায়কত্ব করার অভিজ্ঞতাকে। এ ম্যাচে যা হবার তাই। প্রথম ব্যাটিং করে ১৫৬/৮ উইকেটে। রেয়ান করেন ২৮ বলে ৫৪। 

এরপর বাংলাদেশ সবসময়ই ১৫০ রানের উপরে থাকা টার্গেট নিয়ে কাপাকাপিতে পরে যাওয়া অভ্যাসটা এ ম্যাচেও ছিল। চরম ব্যাটিং ব্যার্থতা ও যাদের উপর বর্তমান নির্বাচক প্যানেলের অনেক ভরসা তারা দেশকে লজ্জায় ডুবিয়ে ১৪৬/৮ রানে ইনিংস শেষ করে ১০ রানে পরাস্ত হয়। ম্যাচের কখনই তারা উত্তেজনাটুকুও নিয়ে আসতে পারেনি। জিম্বাবুয়ে প্লান ক্রিকেট খেলেই ফ্রন্টফুটে থেকে তুলে নেয় জয় যোগ্য দল হিসেবে। এ ম্যাচে চান্স দেয়া এ ফরম্যাটের সাবেক  অধিনায়ক ২৭ বলে ২৭ রানের এক ইনিংস খেলেন। এ ছাড়া আফিফের ২৭ বলে করা ৩৯ই সর্বোচ্চ স্কোর। 

দুর্দান্ত পারফর্ম করে সিরিজ সেরা হন জিম্বাবুয়ের সিনিয়র ক্রিকেটার সিকান্দার রাজা। 

শেয়ার করুন