২২ জুন ২০১২, শনিবার, ০২:৪২:৫৭ অপরাহ্ন


আইসের কারাগারে ইমিগ্র্যান্টদের সাক্ষাতের জন্য আইনি সংগঠনের মামলা
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ০২-১১-২০২২
আইসের কারাগারে ইমিগ্র্যান্টদের সাক্ষাতের জন্য আইনি সংগঠনের মামলা


আইনি সেবা প্রদানকারী সংগঠনসমূহ ইউএস ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস এনফোর্সমেন্ট (আইস)-এর বিরুদ্ধে তাদের চারটি ডিটেনশন সেন্টারে আটককৃতদের আইনজ্ঞদের সাথে দেখা করতে না দেয়ার জন্য মামলা করেছে। অ্যাটর্নিদের সাথে বন্দিদের সাক্ষাৎ করতে না দেয়ার বিষয়টি ইমিগ্র্যান্টদের মৌলিক চাহিদা রক্ষায় আইসের ব্যর্থতা হিসেবে দেখা হচ্ছে। 

আইস হাজার হাজার ইমিগ্র্যান্টকে গ্রেফতার করে রেখেছে। তারা এখন তাদের অধিকারের জন্য সংগ্রাম করছে। যাতে তারা বৈধভাবে আমেরিকায় থাকতে পারে তাদের পরিবারের সাথে। আইস কিন্তু ইমিগ্র্যান্টদের সারা দেশে তাদের ২০০ কাউন্টি জেলে আটক করে রাখে। তাদেরকে রাখার জন্য বেসরকারি কারাগার ও অন্যান্য ডিটেনশন ফ্যাসিলিটিতে আটকে রাখে। অনেক ফ্যাসিলিটি ইমিগ্রেশন অ্যাটর্নিদের কাছ থেকে অনেক দূরে গ্রামাঞ্চলে অবস্থিত। 

মামলায় আইনি সংখ্যাগুলো ফ্লোরিডার ফোর্স ডিটেনশন সেন্টার। অ্যারিজোনায় ফ্লোরেন্স করেকশনাল সেন্টার, লুইজিয়ানায় রিভার করেকশনাল সেন্টার ও টেক্সাসের লরেডো প্রসেসিং সেন্টারে অ্যাটর্নিদের প্রবেশে সমস্যাকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। এসব সেন্টারে আইস অ্যাটর্নিদের তাদের ক্লায়েন্টের সাথে গোপন সভা ও কথাবার্তা চালাতে সুযোগ দিচ্ছে না। সেখানে অ্যাটর্নিদেরকে এবং ক্লায়েন্টদের পরস্পরের সাথে যোগাযোগ করতে দেয়া হচ্ছে না। এই চারটি ডিটেনশন সেন্টারের মতো অন্যান্য সেন্টারেও একই সমস্যা রয়েছে। তবে এসব সেন্টার থেকে ভালোভাবে ডকুমেন্ট সংগ্রহ করা হয়েছে। একজন আইনজ্ঞ নেয়া জরুরি। আটক লোকেরা অ্যাটর্নির মাধ্যমে আবেদন করলে ১০গুণ বেশি মামলা জেতার সম্ভাবনা রয়েছে। তারপরও আইস তার নিজের স্ট্যান্ডার্ড বজায় রাখতে ব্যর্থ হয়েছে। এই আইনজ্ঞদের সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে আইস ব্যর্থ হয়েছে। আটক ইমিগ্র্যান্টদের ৮০ শতাংশ ইমিগ্রেশন কোর্টে কোনো অ্যাটর্নির সহায়তা পায় না। যদি কেউ কোনো অ্যাটর্নি পায়, আইস সে অ্যাটর্নির জন্য কাজ করতে সমস্যার সৃষ্টি করছে। 

এক জরিপে দেখা গেছে, অন্তত ৫৮ শতাংশ ডিটেনশন ফ্যাসিলিটিতে আইস অ্যাটর্নিদের নির্ধারিত কল অ্যাটেন্ড করতে দেয় না। ৮৫ শতাংশ ডিটেনশন ফ্যাসিলিটি আউট গোয়িং কলের জন্য আটককৃতদের চার্জ করে থাকে। এক-তৃতীয়াংশকে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করতে দেয়া হয় না। যদি সরকার যারা এ দেশে আসেন, তাদের বন্দি করার কাজ চালিয়ে যায়, তাহলে তাদের জন্য অ্যাটর্নির সাহায্য চাওয়ার কাজ সহজ করে রাখা উচিত। 

শেয়ার করুন