১৪ জুন ২০১২, শুক্রবার, ০৫:০৬:৪৫ অপরাহ্ন


আবারও বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন এম আজিজ
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৮-১১-২০২৩
আবারও বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন এম আজিজ বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা


আবারও বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং সমাজসেবক এম আজিজ। দ্বিতীয় বার ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হয়ে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করলেন এম আজিজ। এম আজিজই একমাত্র ব্যক্তি যিনি বাংলাদেশ সোসাইটির ৪৯ বছরের ইতিহাসে দুই বারের নির্বাচিত সভাপতি এবং দুই বার ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন। গত ৫ নভেম্বর সন্ধ্যায় বাংলাদেশ সোসাইটির নিজস্ব ভবনে ট্রাস্টি বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সভাতেই তিনি দ্বিতীয়বারের মতো টাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রব মিয়ার সভাপতিত্বে সভাার শুরুতে তিনি নবনির্বাচিত ১২ জন সদস্যকে শপথ বাক্য পাঠ করান। এর পর পরই ভোটাভুটির মাধ্যমে ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়। এই নির্বাচনে ১২ জন ট্রাস্টি বোর্ড সদস্যসহ বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। ভোটাভুটিতে এম আজিজ ৮-৫ ভোটে নির্বাচিত হন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী আজিমুর রহমান বোরহান পেয়েছেন ৫ ভোট।

বাংলাদেশ সোসাইটির গত নির্বাচন ছিল নানাভাবে আলোচিত। একইভাবে আলোচিত ছিলো বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য নির্বাচন। এই ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরি কমিটির মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটে। কোর্ট-কাচারিও হয়। এই কোর্ট-কাচারি এখনো অব্যাহত রয়েছে। গত টার্মে এম আজিজ তার কর্মগুণেই সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এম আজিজ ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির একজন সফল সভাপতি। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ সোসাইটি একটি গণমুখী সংগঠনে রূপ লাভ করে। সোসাইটির সভাপতি হওয়ার পূর্বেও এম আজিজ সোসাইটির ভবন রক্ষায় এগিয়ে এসেছিলেন এবং আর্থিক সহযোগিতাও প্রদান করেন। কমিউনিটির উন্নয়নের পাশাপাশি তিনি মানবসেবায়ও ছিলেন অনন্য। নীরবে নিবৃত্তে অনেক মানুষের উপকার করেছেন। কমিউনিটিতে বহু ধনী লোক আছেন যারা শুধু নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন এবং এখনো আছেন কিন্তু আজিজ তাদের চেয়ে ব্যতিক্রম। তিনি সব সময় কমিউনিটির পাশে ছিলেন, অসহায় মানুষের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমাদের সমাজে একটি কথা প্রচলিত আছে, যে মানুষ কাজ করে তার শত্রু থাকে না, আর যে কাজ করে তার সমালোচনা এবং শত্রু দুটিই থাকে। সেই সজ্ঞায় অনেকের কাছেই অহেতুক সংজ্ঞায়িত এম আজিজ। তবে এম আজিজ দমবার পাত্র নন। মেঘ দেখে তিনি ভয় পাওয়ার পাত্র নন তিনি। কারণ তার উদ্দেশ্য এবং আদর্শ সৎ। সেই জন্যই তিনি বারবার নির্বাচিত হন-এমন মন্তব্য অনেকের। যতই তাকে ষড়যন্ত্র করে টেনে নিচে নামানোর চেষ্টা করা হোক না কেন বা তার চলার পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির চেষ্টা করা হোক না কেন ষড়যন্ত্রকারীরা সফল হতে পারেন না। তার দৃঢ়তার কাছে, ভালো কাজের কাছে সবাই পরাস্ত হন।

বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ড নির্বাচন এবং ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচনের সময়ও তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীরা সফল হয়নি, সমাজে ভালো মানুষ আছে বলেই। ভালো নেতৃত্ব, ভালো কাজে ভালো মানুষের সমর্থন থাকবেই। সত্যের জয় হবেই। সেটিই হয়েছে এম আজিজের ক্ষেত্রে।

বাংলাদেশ সোসাইটির নবনির্বাচিত ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা হলেন-এম আজিজ, আক্তার হোসেন, হাজি মফিজুর রহমান, আব্দুল হাসিম হাসনু, ওয়াসি চৌধুরী, মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, এমদাদুল হক কামাল, আজিমুর রহমান বোরহান, খোকন মোশাররফ, ভিপি জহিরুল ইসলাম মোল্লা, আতোয়রুল আলম এবং শাহজাহান সিরাজি। এ সময় বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সিদ্দিকীসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

দ্বিতীয়বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর এম আজিজ বলেন, আমাকে ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত করার জন্য বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরি কমিটির সদস্যদের এবং চেয়ারম্যান নির্বাচিত করায় ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যদের ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা। তিনি বলেন, আমি কমিউনিটির জন্য কাজ করে আসছি এবং আগামীতেও করবো। আমি সব সময় আমার কমিউনিটির পাশে রয়েছি এবং থাকবো। আমার এই ধারা চলমান থাকবে। তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

শেয়ার করুন