২২ জুলাই ২০১২, সোমবার, ০৭:৩৩:৪১ অপরাহ্ন


আফগান ঝড়ে নাস্তানাবুদ অজি
নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৩-০৬-২০২৪
আফগান ঝড়ে নাস্তানাবুদ  অজি বিশ্বসেরা দলকে হারানোর পর এমন উচ্ছাস আফগানদেরই মানাচ্ছে/ছবি সংগৃহীত


আফগানদের বিপক্ষে চোখেমুখে হতাশার ছবি স্পষ্ট ফুটে উঠেছিল অস্ট্রেলিয়ার। অপ্রত্যাশিত কিছু নয়। আফগান রুপ কথার কহিনী যাদের জানা তারা এতে বিস্মিত হবেন না। টি২০ বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ন ম্যাচে যদি জার্সি পরিচয়টা বহন না করতো তাহলে অস্ট্রেলিয়া দলের বাজে পারফরমেন্সের স্থানে আফগানিস্তান। আর আফগানদের দুর্দান্ত পারফরমেন্সের স্থানে অজিদের বসিয়ে দিলেই ছিল যথার্থ।


কী বোলিং কি ব্যাটিং। প্রতিটা ডিপার্টমেন্টে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করে অজিদের শুধু হারায়নি, রীতিমত নাকানি চুবানি দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে উপমহাদেশের উঠতি শক্তি আফগানিস্তান। যাতে করে রীতিমত অজিরা বিধ্বস্ত আফগান ঝড়ে।


প্রথম ব্যাটিং করতে নেমে দুই ওপেনার রহমাতুল্লাহ গুরবাজ ও ইব্রাহিম জারদানের ১১৮ রানের পার্টনারশীপ মনে হচ্ছিল খেলাটা কাবুলের কোনো স্টেডিয়ামেই হচ্ছে। অজি বোলাররা একেবারেই অসহায়। নাস্তানাবুদ। কিছুই করতে পারছিলেণ না। পরাশক্তির তালিকায় থাকা অজিদের বোলিং সাদামাটায় পরিনত করে ওই দুই ব্যাটসম্যান হাফ সেঞ্চুরী করেছেন পাল্লা দিয়ে। এরমধ্যে গুরবাজ ৫০ করেন ৪৪ বলে। এরপর জারদান করেন ৪৬ বলে। এরপর তারা বিচ্ছিন্ন হন। ইনিংস শেষে স্কোর ১৪৮/৬। সর্বোচ্চ গুরবাজের রান ৬০। চার ছক্কা ও চার বাউন্ডারীর সাহায্যে। প্যাট কামিন্স নেন তিন উইকেট।


অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং স্তম্ভ গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে আউটের পর গুলবদ্দিন নায়েব/ছবি সংগৃহীত


এরপর খেলতে নামা অস্ট্রেলিয়ান ইনিংসে ধ্বস নামান ৮ নাম্বারে বোলিং করতে আসা গুলবদ্দিন নায়েব। ৪ ওভারে ৪ উইকেট নিয়ে অজি ইনিংস ধ্বংসলীলায় পরিণত করে দেন। এর আগে নাভিদ উল হক নিয়েছেন তিন উইকেট ওপেনিংয়ে বোলিং করে। অজি ইনিংস শেষ ১২৭ রানে। তাও চার বল খেলতে বাকী ছিল তখনও।


শুধুই যে অস্ট্রেলিয়া হেরেছে তাও না। দলটির দুর্বলতা কোথায় সেটাও দেখিয়ে দিয়েছে আফগানরা ওয়েস্টইন্ডিজের কিংস্টাউনের কন্ডিশনে। ম্যান অব দ্যা ম্যাচ চার উইকেট নেয়া গুলবদ্দিন নায়েব।    

শেয়ার করুন