০৮ জুন ২০২৩, বৃহস্পতিবার, ০৪:২৯:১১ পূর্বাহ্ন


যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেট স্টেটগুলোতে আবাসন সংকট সবচেয়ে বেশি
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ১১-০৮-২০২২
যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেট স্টেটগুলোতে  আবাসন সংকট সবচেয়ে বেশি


যুক্তরাষ্ট্রে আবাসন সংকট ক্রমবর্ধমান হারে জটিল হয়ে উঠছে। বাড়ির মূল্য ও বাড়িভাড়া বৃদ্ধির হার অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে অধিক এবং ‘ব্লু স্টেট’ হিসেবে পরিচিত ডেমোক্রেট স্টেটগুলোতে আবাসন সংকট সবচেয়ে বেশি। কেউ বলছেন, এ সংকটের কারণ সরকারের নীতি, অনেকে বলছেন, সরকারের আবাসন নীতিতে সমস্যা নেই, বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছে। এর ফলে আমেরিকার পুরো হাউজিং ব্যবস্থা ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে এবং এর সংস্কার ছাড়া দেশে গৃহহীনের সংখ্যা আরোবৃদ্ধি পাবে এবং মাঝারি আয়ের আমেরিকানদের পরিবার নিয়ে গাদাগাদি হয়ে থাকতে হবে।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক রিপোর্টে আরবান ইকনমিস্ট ও ব্রুকিংস ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ফেলো জেনি শ্যুটজ বলেছেন যে, আবাসন নীতি বাস্তবায়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে রাজনীতি। বাড়ির দাম বাড়ছে, বাড়ি মালিকরা ভাড়া বৃদ্ধি করছে এবং স্টেট পর্যায়ের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের রাজনীতির প্রধান ইস্যুতে পরিণত হয়েছে আবাসন সংকট। আমেরিকায় ঐতিহ্যগতভাবেই জমি ব্যবহার ও যে কোনো ধরনের ভবন তা আবাসিক, বাণিজ্যিক বা শিল্প স্থাপনা বা বিনোদনের জন্য কোনোকিছু নির্মাণ করতে হলে সেক্ষেত্রে স্থানীয় সরকারগুলোই নিয়ন্ত্রণ করে।

কিন্তু অধিকাংশ স্টেট সরকারের মূল্যায়ন হলো হাউজিং মার্কেট সুষ্ঠুভাবে কাজ করছে না বলেই হাউজিংয়ের বর্তমান সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। তারা অভিযোগের আঙুল তুলেছে রিয়েলটর ও হাউজিং ডেভেলপার কোম্পানিগুলোর দিকে। কারণ তারা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বাড়ি শেষ করেন না। ফলে হাউজিং মার্কেটে যতোসংখ্যক বাড়ির চাহিদা, সেই সংখ্যক বাড়ি বিক্রয়ের জন্য প্রস্তুত থাকে না। ডেভেলপাররা অভিযোগ করেন যে, স্থানীয় সরকারের জোনিং কমিটিগুলো সাধারণত সিটির প্রান্তভাগে বাড়ি নির্মাণের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেয়, যেখানে নিজস্ব গাড়ি ছাড়া চলাচলের কোনো সুবিধা থাকে না। ফলে তারা প্রকৃত মূল্যের চেয়ে কমমূল্যে বাড়ি বিক্রয় করতে বাধ্য হন এবং বহু বাড়ি অবিক্রীত পড়ে থাকে।

তার মতে, হাউজিং মার্কেটের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও পরিবেশগত যে ব্যয় তা স্থানীয় সীমানা ছাড়িয়ে পুরো এলাকা ও স্টেটের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। স্টেট পর্যায়ে যদি ইতিবাচক কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়, কেবল সেক্ষেত্রেই হাউজিং মার্কেটের সংকট সমাধান করা সম্ভব। জেনি শ্যুটজ বলেছেন, বিদ্যমান হাউজিং নীতি সংশোধনের আগে স্টেটের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের উচিত হাউজিংয়ের চাহিদা এবং চাহিদা পূরণে যেসব সমস্যা আসে সেগুলো চিহ্নিত করতে এ সংক্রান্ত পেছনের তথ্যউপাত্ত বিশ্লেষণ করা এবং কেবল এর পরই কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা। হাউজিং চাহিদার ক্ষেত্রে প্রধান বিষয় হলে জনসংখ্যা বৃদ্ধি এবং যেসব সিটিতে দ্রুত জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে সেখানে হাউজিং চাহিদা স্থির করা আবশ্যক।

জেনি শ্যুটজ আরো বলেছেন, যেসব কাউন্টিতে জীবনযাত্রার ব্যয় কম, সেখানে হাউজিং মার্কেটে ধস নেমেছে, যার কারণ সম্পূর্ণ অর্থনৈতিক। কোনো সিটিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ না থাকলে, অথবা যারা ইতোমধ্যে কাজে নিয়োজিত, তাদের সুবিধাজনক বেতন না থাকার কারণে বাড়ির চাহিদা নিম্নমুখী। কিন্তু এ দৃষ্টান্ত খুব বেশি দেখা যায় না। বরং বড় সিটিগুলোর চিত্র সম্পূর্ণ উল্টো। বাড়ির ঘাটতির কারণে আকাশচুম্বী ভাড়া, গৃহহীন সংখ্যা বৃদ্ধি ইত্যাদি। আমেরিকান স্বপ্ন পূরণের একটি বড় অংশ তরুণ বয়সীদের বাড়ির মালিকা হওয়া, কিন্তু এখন সিংহভাগের ক্ষেত্রে সেই স্বপ্ন পূরণ সুদূর পরাহত।

 

শেয়ার করুন