২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, শুক্রবার, ০৩:২৮:০৪ অপরাহ্ন


সংবাদ সম্মেলনে ড. সিদ্দিক
আমরা আকাশ থেকে আসিনি, প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা আমরা করবো
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৩-০৯-২০২৩
আমরা আকাশ থেকে আসিনি, প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা আমরা করবো বক্তব্য রাখছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান


আমরা আকাশ থেকে আসিনি। প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা গত ১৩ বছর ধরে আমরাই করে আসছি। এবারো প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা আমরাই করবো। আমরা আশা করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে অপমান করবেন না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাগরিক সংবর্ধনাকে কেন্দ্র করে গত ৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় এক সংবদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।

সংবাদ সম্মেলনে সিদ্দিকুর রহমান মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, তারা আমাদের না জানিয়ে, আমাদের পরামর্শ না দিয়ে এককভাবে প্রধানমন্ত্রীর সংবধর্না দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে গঠনতন্ত্র বিরোধী কাজ করেছে। এ সময় তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, আমার আকাশ থেকে নেমে আসিনি, মহানগর আওয়ামী লীগ কমিটিকে আমি স্বাক্ষর করে অনুমোদন দিয়েছি। তাই গায়ের জোরে এককভাবে এ রকম সিদ্ধান্ত নিলে পরিণাম ভালো হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে সিদ্দিকুর রহমান উত্তেজিত ও ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, মহানগর আওয়ামী লীগ গঠনতন্ত্রবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়ে ছেলেমি করেছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরে গেলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক ব্যবস্থা প্রহণ করবে। তিনি আরোস বলেন, প্রায় আড়াই মাস আগে সংবর্ধনার জন্য আমি হোটেল ভাড়া নিয়েছি। আমাদের নেত্রীকে সুন্দর-সুশৃঙ্খলভাবে সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য মহানগর আওয়ামী লীগে কোনো লোকবল বা সাংগঠনিক দক্ষতা নেই। তাই আমাদের নেত্রী, আমাদের অভিভাবক শেখ হাসিনা নিউইয়র্কে এলে তার পরামর্শ অনুযায়ীই সংবধর্না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি নাম না নিয়ে, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির আব্দুস সোবহান গোলাপ এমপিকে ইঙ্গিত করে বলেন, তিনি ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে মহানগর আওয়ামী লীগকে সংবধর্নার দায়িত্ব দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছেন। গোলাপ এটি না করলেও পারতেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

আব্দুস সোবহান গোলাপ এমপি এর আগেও কৌশলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভেতর বিভেদ সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগকে মঞ্চের বাহিরে রেখে, প্রধানমন্ত্রীকে সংবধর্না দেওয়া হয়েছে। ২০১৮ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনাকে আমাদের কাছ থেকে হাইজ্যাক করাস হয়েছে। আব্দুর সোবহান গোলাপ এবারও কি দলের ভেতর বিভেদ সৃষ্টির পরিকল্পনা করছে? সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে এমন প্রশ্ন করা হলে, তিনি কোনো উত্তর দেননি।

লিখিত বক্তব্যে আব্দুস সামাদ আজাদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের ৭৮তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক আসছেন। অন্যবারের মতো এবারও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, অঙ্গসংগঠন এবং স্টেট কমিটি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংবর্ধনার আয়োজন করবে। তিনি আগামী ২২ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন এবং একই দিন সন্ধ্যায় ম্যানহাটনের ম্যারিয়ট ম্যাঙ্কুইস হোটেলের বল রুমে নাগরিক সংবর্ধনা সভায় অংশ নেবেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ এবং সব অঙ্গ সংগঠন প্রধানমন্ত্রীকে এয়ারপোর্টে স্বাগত জানাবে, জাতিসংঘের সামনে শান্তি সমাবেশ করবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাসমুদ্দীন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহি উদ্দিন দেওয়ান, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, কৃষিবিষয়ক সম্পাদক কৃষিবিদ আশরাফুজ্জামান, সোলায়মান আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী, মাহবুবুর রহমান টুকু, বজলুর রহমান, জি আই রাসেল, স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল, যুব লীগের আহ্বায়ক তারিকুল হায়দার চৌধুরী, মুর্শেদা জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান মেরাজ, শাহানারা রহমান, খোরশেদ খন্দকার, আবুল হোসেন এবং বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

শেয়ার করুন