১৪ জুন ২০১২, শুক্রবার, ০৬:১৫:৩১ অপরাহ্ন


ইউনাইডেট মিশন ফর রিলিফ এন্ড ডেভলপমেন্ট মানব কল্যাণে নিবেদিত
দেশ রিপোর্ট
  • আপডেট করা হয়েছে : ৩০-০৬-২০২২
ইউনাইডেট মিশন ফর রিলিফ এন্ড ডেভলপমেন্ট মানব কল্যাণে নিবেদিত জ্যামাইকার একটি মসজিদে ইউএমআর কর্মকর্তারা


ইউনাইটেড মিশন ফর রিলিফ এন্ড ডেভলপমেন্ট বা ইউএমআর একটি নিবন্ধিত অলাভজনক সংস্থা যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিকভাবে সুবিধাবঞ্চিতদের ত্রাণ এবং পুনরুদ্ধার সেবা প্রদান করে। মানবসেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সংস্থা হিসেবে ৫০১(প)(৩) ধারায় নিবন্ধিত। ওয়াশিংটন ডিসিতে টগজ-এর সদর দফতর অবস্থিত এবং দুটি আঞ্চলিক অফিস রয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যের জর্ডান এবং পূর্ব আফ্রিকার কেনিয়ায় মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। সুবিধাবঞ্চিত এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে তাদের সমতা গড়ে তুলতে সহায়তা করা সেই সাথে জীবনমান উন্নয়নে ইউএমআর নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবনযাত্রার উন্নয়নে  মানুষের পছন্দের সংগঠন হয়ে ওঠাই ইউএমআর’র লক্ষ্য। 

ইউএমআর সুবিধাভোগীদের বিষদ প্রোফাইল তৈরি করে প্রকৃত চাহিদা সম্পন্ন মানুষের কল্যাণে সঠিক সময়ে সহায়তা পৌঁছে দিয়ে থাকে। নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠী বিশেষ করে যারা বিপদগ্রস্থ এবং সাহায্য প্রত্যাশী, যারা শারিরীকভাবে অম বা চরম দারিদ্র্যতার সাথে জীবন যাপন করছেন সেইসাথে উদীয়মান উদ্যোক্তাদের কল্যাণে কাজ করে ইউএমআর। এছাড়াও পারিবারিক-স্তরের সহায়তা করা হয়ে থাকে যেমন, পরিবারের জন্য পুষ্টি এবং প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সেবা সেই সাথে চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ এবং বিতরণ।       

যদিও প্রাকৃতিক এবং মনুষ্যসৃষ্ট বিপর্যয় এখন বেশ কয়েক বছর ধরে নতুন স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে। ২০২০ সালে সেই বিপর্যয় একটি নতুন আকার ধারণ করেছিল যেখানে ইউএমআর প্রাতিষ্ঠানিক, আর্থিক এবং লজিস্টিক্যাল দৃষ্টিকোণ থেকে মানুষের সহায়তায় কাজ করেছে। ২০২০ সালে, ইউএমআর ১২ টি দেশে ৪১ টি দারিদ্র্য বিমোচন ও উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে সরাসরি ৬৮৩,৩৫৩ জন মানুষের কাছে পৌঁছেছে এবং আনুমানিক ২,৪৩৫,৪৭৭ জন পরোভাবে সেবা গ্রহণ করেছেন। কোভিড ১৯ মহামারির সময় নতুন বাস্তবতার সাথে খাপ খাইয়ে নেয়ার জন্য কাজ করা বিভিন্ন সংস্থাগুলির মধ্যে টগজ ছিল অন্যতম। বর্তমানে ইউএমআর আরো বেশি আত্মবিশ্বাসী এবং অভিজ্ঞতালব্ধ হয়েছে- কর্মীদের নিরলস পরিশ্রম, দাতাদের সহায়তা, অংশীদারদের সর্বাঙ্গীন সহযোগিতা, দলীয় সামষ্টিক কর্মপরিকল্পনা ইউএমআর’র কাজের গতিকে ত্বরান্বিত ও সুসংহত করেছে যার মাধ্যমে লাখো বিপদগ্রস্ত মানুষ বিশেষ সময়ে দ্রুত সহায়তা লাভ করেছেন।

ইউএমআর সম্মানিত দাতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছে যারা বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য এবং কর্মপরিধি প্রসারিত করার জন্য তাদের অনুদান দিয়ে সহায়তা করেছেন। ২০১৯ সালে যে বৈশ্বিক হুমকির সম্মুখীন হয়েছিলাম তার পরও UMR-এর অপারেশনস টিম কর্মমতা পুনরুদ্ধার করেছে, যার মোট মূল্য প্রায় ৩৪ মিলিয়ন ডলার, যার মধ্যে ৩৩ মিলিয়ন ছিল স্বাস্থ্য খাতে এবং ১ মিলিয়ন শিা খাতে । লেবাননের বৈরুত বন্দর বিস্ফোরণের মতো বড় সঙ্কট স্থলেও প্রথম প্রতিক্রিয়াশীলদের ছিল UMR। অপারেশন টিমের আরেকটি মাইলফলক হলো ইউএস-ডোমেস্টিক প্রোগ্রাম যা আমাদের পোর্টফোলিওর প্রায় ২১% জুড়ে আছে, যা আগের বছরগুলিতে ০-৩%।

২০২০ সালে সালে, UMR ৮ টি দেশের ১৯৯,২০১ জন মানুষের কাছে ২৪ টি দারিদ্র্য বিমোচন প্রকল্প সরবরাহ করেছে, যা জাতিসংঘের ২০৩০ সালের টেকসই উন্নয়ন ল্যমাত্রা (SDG.১, SDG.২, এবং SDG.৯) এ অবদান রেখেছে। আমাদের দারিদ্র্য বিমোচন প্রকল্পগুলির আশি শতাংশ (৮০%) খাদ্য নিরাপত্তা এবং বিশ শতাংশ (২০%) জরুরি প্রতিক্রিয়া এবং ত্রাণের কাজে নিয়োজিত। আমাদের কৌশলগত দিকনির্দেশের মধ্যে শরণার্থী এবং অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত জনগোষ্ঠীর মতো দীর্ঘস্থায়ীভাবে দুর্বল সম্প্রদায়ের সার্বিক সহায়তার সাথে সাথে প্রাথমিকভাবে জড়িত। আমরা স্থানীয় অংশীদারদের (যেমন, হাসপাতাল বা স্কুল) চিহ্নিত করি এবং অগ্রাধিকার দিই এবং তাদের সম্প্রদায়ের সেবা করার জন্য তাদের ল্যগুলি বাস্তবায়িত করতে সহায়তা করি। উদাহরণস্বরূপ, জর্ডানে, আমরা নির্দিষ্ট জটিলতা বা অমতাসহ চরম দারিদ্র্যের সম্মুখীন জর্ডানিয়ান এবং নন-জর্ডানিয়ানদের চিহ্নিত করে স্থানীয় সহায়তা গোষ্ঠীগুলোকে সঙ্গে নিয়ে তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে কাজ করেছে UMR। এছাড়াও আমরা শিা মন্ত্রণালয় এবং স্কুল এবং এতিমখানাগুলির সাথে তাদের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করার জন্য (যেমন, চেয়ার এবং ফ্যান বিতরণ) এবং শিশুদের জামাকাপড় এবং বিছানাপত্র দিয়ে তাদের জীবনব্যাবস্থা পুনরুদ্ধার করার জন্য কাজ করেছি।

৪ আগস্ট, ২০২০-এ, লেবাননের বৈরুত বন্দরে একটি বিশাল বিস্ফোরণে কমপে ২০৪ জন মারা গেছে, ৭৫০০ জন আহত হয়েছে এবং ১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সম্পত্তির তি হয়েছে এবং আনুমানিক ৩০০,০০০ জন লোককে গৃহহীন করেছে। UMR বেসরকারি সেক্টরের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে দ্রুত তির মূল্যায়ন স্থাপন করেছে এবং একইসাথে একটি নির্বিঘœ এবং দ কেস ম্যানেজমেন্ট প্রক্রিয়া প্রয়োগ করেছে। যার ফলে বৈরুতের ভয়াবহ বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে দ্রুত সহায়তা পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়েছে।

আমাদের বিশ্বস্ত অংশীদার আক্কারোনার সাথে, ইউএমআর লেবাননের বৈরুতের কারান্তিনা সরকারি হাসপাতাল এবং অন্যান্য তিগ্রস্ত হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলিতে পাঁচটি স্বাস্থ্য কিট সরবরাহ করেছে। এই স্বাস্থ্য কিটগুলির প্রতিটি তিন মাসের জন্য ১০,০০০ উপকারভোগীকে সহায়তা করেছে। কারান্তিনা সরকারি হাসপাতাল নিজেই বৈরুত বিস্ফোরণের ধ্বংসাবশেষের মধ্যে ছিল, তার সমস্ত চিকিৎসা সরঞ্জাম এবং প্রসবপূর্ব পরিষেবার সুবিধাগুলিও ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। হাসপাতাল পুনর্র্নিমাণের জন্য UMR- দ্রুত সহায়তা করেছিল যার ফলে রোগীরা সেই হাসপাতাল থেকে সেবা গ্রহণ করতে পেরেছেন।

জাতীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং বাস্তবায়ন অংশীদার পিওর হ্যান্ডস-এর সহযোগিতায় প্যালেস্টাইন, ইয়েমেন এবং সুদানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরবরাহের সাথে অনুরূপ চিকিৎসা সরঞ্জাম চালানও বিতরণ করা হয়েছিল। সরবরাহকৃত সরঞ্জাম এর মধ্যে রয়েছে সিরিঞ্জ, অ্যালুমিনিয়াম বেত, ক্রাচ, অক্সিজেন মাস্ক এবং সার্জিক্যাল প্যাক।

জর্ডানে, আমরা আমাদের দীর্ঘমেয়াদী অংশীদার IMANA এবং শামি আই সেন্টারের সাথে কাজ করি। ২০২০ সালে, আমরা সিরিয়ান শরণার্থী, চরম দারিদ্র্যতায় ভুগছেন এমন জর্দানিয়ানদের এবং অন্যান্য জাতীয়তা থেকে (যেমন, সুদানীস, ইয়েমেনি, ইরিত্রিয়ান, ইরাকি এবং লেবানিজদের) সেবা দিয়েছি। আমাদের সুবিধাভোগীদের মধ্যে মোটামোটি ৫৩% সিরীয় উদ্বাস্তু ৩৩% জর্ডানিয়ান, এবং ১৪% অন্যান্য জাতীয়তার। কেনিয়াতে, আমরা ওয়াজির রেফারেল হাসপাতাল এবং বিশ্বের মুসলিমদের সাথে অংশীদারিত্ব করেছি। UMR ওয়াজির কাউন্টিতে কাজ করেছে, যেখানে আধা-শুষ্ক এবং প্রধানত সোমালি যাজকরা বসবাস করেন। ঘন ঘন খরা এবং গবাদি পশুর মৃত্যুর কারণে, বেশিরভাগ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নীচে বাস করে। তারা প্রায়শই তাদের অসুস্থতা এবং চিকিৎসার সম্পর্কে অবগত থাকে না, যার ফলে অপুষ্টি এবং বার্ধক্যজনিত কারণে চিকিৎসা না করা চোখের রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পায়।   

UMR ২ টি দেশে, জর্ডান এবং কেনিয়ার ৪৩১১ জন মানুষের কাছে ৩ টি শিা প্রকল্প পৌঁছে দিয়েছে, যা জাতিসংঘের ২০৩০ এজেন্ডা ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (SDG.৪) এ অবদান রেখেছে। ইউএমআর ৪ টি দেশ, বাংলাদেশ, কেনিয়া, পাকিস্তান এবং সোমালিয়ায় ২৬,২১০ জন মানুষের কাছে ৪ টি পানীয় জল, স্যানিটেশন এবং হাইজিন (ওয়াশ) প্রকল্প পৌঁছে দিয়েছে, যা জাতিসংঘের ২০৩০ সালের টেকসই উন্নয়ন ল্যমাত্রার (SDG.৬) এজেন্ডায় অবদান রেখেছে। বিশুদ্ধ পানি, স্যানিটেশন এবং স্বাস্থ্যবিধি হল বায়ুবাহিত সংক্রামক রোগের বিরুদ্ধে বেসলাইন রোগ প্রতিরোধের ব্যবস্থা। পরিষ্কার জলের অভাব এইভাবে অসুস্থতার জন্য একটি বড় ঝুঁকির কারণ, বিশেষ করে কোভিড-১৯ মহামারীর মতো জরুরি পরিস্থিতিতে। আমাদের কাজ চলতেই থাকবে, যেহেতু আমরা নতুন জরুরি পরিস্থিতিতে কাজ করি এবং নতুন মাইলফলক স্পর্শ করি। UMR-এর সম্প্রসারণে এগিয়ে আসুন, এগিয়ে আসুন মানবতার সেবায়।

পবিত্র ঈদুল আযহায় পৃথিবীর অসংখ্য অসহায় মুসলিম পরিবারের পাশে দাঁড়ান।  এশিয়ার অসংখ্য মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করছে, যারা কোরবানীর ঈদেও এক টুকরো মাংসের জন্য মানুষের দিকে তাকিয়ে থাকেন। ঈদ উপহার হিসেবে কোরবানির মাংস প্রদান করে ক্ষুধার্ত পরিবারগুলোর মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলুন।

UMR এর মাধ্যমে কোরবানির অর্থ প্রদান করুন । 

ডোনেট করতে এখনি ভিজিট করুন UMRelief.org/qurbani এই ওয়েব এড্রেসে। বিস্তারিত জানতে কল করুন ২০২৩ ৭০৬ ৯৬৩ এই নাম্বারে। অথবা ই-মেইল করুন info@umreleif.org এই ঠিকানায়।


শেয়ার করুন